ছড়া

ছড়ায় ছড়ায় ছড়াছড়ি

ছোটদের ছড়া

ছোটদের ছড়া। এখন আর এসব ছড়া কেউ পড়ে না। এগুলো এখন হারিয়ে যেতে বসেছে। শিশুরা এসব ছড়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। শিশুদের এসব ছড়া বেশি করে পড়ানোর দরকার।

আয়রে আয় টিয়ে

আয়রে আয় টিয়ে
নায়ে ভরা দিয়ে।
নাও নিয়ে গেল বোয়াল মাছে,
তাই না দেখে ভোঁদড় নাচে।
ওরে ভোঁদড় ফিরে চা
খোকার নাচ দেখে যা।

ঝুমকো জবা

— ফররুখ আহমদ


ঝুমকো জবা বনের দুল
উঠল ফুটে বনের ফুল।
সবুজ পাতা ঘোমটা খোলে
ঝুমকো জবা হাওয়ায় দোলে।
সেই দুলনির তালে তালে
মন উড়ে যায় ডালে ডালে।

খোকা ঘুমাল

খোকা ঘুমাল পাড়া জুড়াল বর্গি এল দেশে
বুলবুলিতে ধান খেয়েছে, খাজনা দেব কীসে?
ধান ফুরাল, পান ফুরাল, খাজনার উপায় কী?
আর কটা দিন সবুর কর, রসুন বুনেছি।


বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর

বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর নদে এল বান,
শিব ঠাকুরের বিয়ে হলো তিন কন্যা দান।
এক কন্যা রাঁধেন বাড়েন এক কন্যা খান,
এক কন্যা রাগ করে বাপের বাড়ি যান।

খোকন খোকন ডাক পাড়ি

খোকন খোকন ডাক পাড়ি
খোকন মোদের কার বাড়ি?
আয়রে খোকন ঘরে আয়,
দুধমাখা ভাত কাকে খায়।


আতা গাছে তোতা পাখি

আতা গাছে তোতা পাখি
ডালিম গাছে মউ,
এত ডাকি তবু কথা
কও না কেন বউ ?

নোটন নোটন পায়রাগুলি

নোটন নোটন পায়রাগুলি
ঝোটন বেঁধেছে
ওপারেতে ছেলেমেয়ে
নাইতে নেমেছে।

দুই ধারে দুই রুই কাতলা
ভেসে উঠেছে
কে দেখেছে কে দেখেছে
দাদা দেখেছে
দাদার হাতে কলম ছিল
ছুঁড়ে মেরেছে
উঃ বড্ড লেগেছে!

কে মেরেছে কে ধরেছে
কে দিয়েছে গাল?
তাই তো খোকন রাগ করেছে
ভাত খায়নি কাল।

আম পাতা জোড়া জোড়া

আম পাতা জোড়া জোড়া
মারবো চাবুক চড়বো ঘোড়া
ওরে বুবু সরে দাড়া
আসছে আমার পাগলা ঘোড়া
পাগলা ঘোড়া খেপেছে
চাবুক ছুড়ে মেরেছে।


আরও পড়ুন : ছড়া

Share on Social Media